কাহিনী

যেভাবে বিলিয়ন টাকা খরচ করে লিওনাল মেসি

বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই বন্ধুরা আজকের এই পোষ্টে আমরা জানবো লিওনেল মেসি কিভাবে তার বিলিয়ন বিলিয়ন টাকা উড়ায় ভুলতে গেলে লিওনেল মেসি পৃথিবীর সবথেকে ধনী খেলোয়াড় আর এই ধনী খেলোয়াড় গাড়ি-বাড়ি নিয়ে আজকে আমাদের পোষ্টটি শেষ পর্যন্ত দেখতে থাকুন আশা করছি মেসি সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারবেন তো চলুন ভিডিওটি শুরু করা যাক বিরাট কোহলি অথবা শাহিদ আফ্রিদি কিংবা শোয়েব আক্তার অথবা সচিন তেন্দুলকার ক্রিকেট একটি আলাদা আলাদা জায়গা বানিয়ে নিয়েছে আর ক্রিকেটের জায়গা বানানোর সাথে সাথে বিপুল পরিমাণ ধন সম্পদ অর্জন করেছে আর এ চার জন প্লেয়ারের সকল সম্পত্তির পরিমাণ হবে প্রায় 400 মিলিয়ন ইউএস ডলার কিন্তু খেলার জগতে এমন একজন প্লেয়ার হয়েছে যার একার সম্পত্তি এই চারজন পেয়ারের সম্পত্তির সমান হ্যাঁ সেটি আর কেউ নয় সেটি হচ্ছে ফুটবলের রাজা লিওনেল মেসি.

লিওনাল মেসি যেভাবে টাকা খরচ করে

যে কিনা 200 মিলিয়ন নয় 300 মিলিয়ন নয় পুরো 600 মিলিয়ন ইউএস ডলারের মালিক মানে তার গাড়ি বাড়ি সব বাদ দিয়ে তার কাছে শুধু ক্যাশ 600 মিলিয়ন ইউএস ডলার বা 5 হাজার কোটি টাকা রয়েছে এই টাকাগুলো এতটাই বেশি যে লিওনেল মেসি যদি প্রতিমাসে 2 কোটি টাকা খরচ করে তাহলেই সম্পূর্ণ টাকা শেষ হতে প্রায় দেড়শ বছর লেগে যাবে আর্মি সফর সফলতা রাতারাতি অর্জন করেনি তো লিওনেল মেসির জন্মগ্রহণ করেছেন 24 হাজার 987 সালের রোজারিও আর্জেন্টিনাকে তো সেই হিসেবে তার বর্তমান বয়স 34 বছর আর তার পিতার নাম জর্জ মেসি এবং তিনি ছিলেন একজন ওয়ার্কার অন্যদিকে তার মায়ের নাম হচ্ছে চেলিয়ামা রিয়া এবং তিনি একজন গৃহিনী ছিলেন এছাড়া রয়েছে একজনের নাম এবং আরেক ভাইয়ের নাম রইল মেসির এছাড়াও মেসির একটি বোন রয়েছে যার নাম মারিয়া চল আর মেসির স্ত্রীর নাম এন্টনি বেশি এছাড়া মেসির তিনজন ছেলে রয়েছে প্রথমটি নাম.

মেসি ভিডিওটির নাম ছিল বেশি এবং তৃতীয় টি নাম মাতেও মেসি মেসির বিষয়ে আপনারা জানেন কিনা জানিনা ছোট বেলায় তার একটি রোগ ছিল যার নাম হার্মন্দীপ সিএনসি আসলে অসুখের কারণে মানুষের শরীরে হরমোনের পরিমাণ কমে যায় যার ফলে মানুষের শরীরের গ্রোথ কমে যায় আর ছোটবেলাতে অসুখের কারণে লিওনেল মেসিকে একবার ফুটবল থেকে অনেক দূরে থাকতে হয়েছিল আর এই অসুখের ডাইভার চালানোর মতো মেসির বাবার টাকা ছিল না কিন্তু লিওনেল মেসি ফুটবল কে এতটাই ভালবাসতাম যে সে মাঠে না গিয়ে থাকতে পারত না যদিও মেসি ছোটবেলা থেকে অনেক ভালো কিন্তু কিন্তু এই অসুখের কারণে অনেক ক্লাব তাকে রিজেক্ট করে দিয়েছিল কিন্তু তখনও সবকিছু শেষ হয়ে যায়নি বার্সেলোনা ক্লাব মেসিকে একটি চাইলে সুযোগ দেয় বার্সেলোনা ক্লাবের তৎকালীন কমিটির পারফরম্যান্স দেখে পুরোপুরি অবাক হয়ে গিয়েছিল আর তৎক্ষণাৎ সেই কোচ একটি টিস্যু পেপারে অ্যাসিড কন্টাক্ট লিখে দিয়েছিল যে কন্টাক্ট এ লিখা ছিল যে মেসির অসুখসহ.

আরও পড়ুনঃ মেয়েদের ইসলামিক নাম

সব কিছুর দায়ভার এফসি বার্সেলোনা ক্লাব গ্রহণ করবে আর এরপরে মেসি বার্সেলোনা ক্লাবে ভর্তি হয়ে যায় আর তারপর থেকে তার পারফরম্যান্স গ্রো করতে থাকে তো এভাবে আস্তে আস্তে নিচে আজকের এই পর্যায়ে এসেছে টু বার্সেলোনা ক্লাবের থাকতে থাকতে নিচের পারফরম্যান্স দেখে একটি রাশিয়ান ক্লাব তাকে বছরের 25 মিলিয়ন ইউএস ডলার বা 212 কোটি টাকা দিতে রাজি হয়েছিল কিন্তু মেসি এই চুক্তিকে না করে দেয় এবং বার্সেলোনাতেই খেলার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে আর পরবর্তীতে মেসির পুরো পৃথিবীতে এত নাম কামাই যে তার নিজের টিম বার্সেলোনা তাকে বছরে 33 মিলিয়ন ইউএস ডলার বা 280 কোটি টাকা দিতে রাজি হয়েছিল এবার আসা যাক মেসির স্পন্সরশীপের ব্যাপারে এখনো পর্যন্ত বিভিন্ন ধরনের ব্র্যান্ডের স্পনসর্শিপ করেছেন যেমন অ্যাডিডাস আর এই কোম্পানির সাথে মেসির লাইফ টাইম এর চুক্তি রয়েছে আর এই কোম্পানি প্রতিবছর মেসিকে 12 মিলিয়ন ইউএস ডলার 100 কোটি টাকা পারিশ্রমিক দেয় এডিডাস কোম্পানি ছাড়াও.

স্পনসর্শিপ করেছেন লিস্ট পেপসি টাটা মোটরস হুয়াই এবং মাস্টারকার্ডের মত মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিতে ফুলস পত্রিকার একটি রিপোর্ট এর মতে লিওনেল মেসির প্রতি বছর তার সকল আয়ের উৎস থেকে মোটামুটি 111 মিলিয়ন ইউএস ডলার বা এক হাজার কোটি টাকা আয় করে এবার আসি আসল বিষয় যে লিওনেল মেসি এত টাকা কিভাবে খরচ করে তবে অন্যান্য ধনী মানুষদের মত লিওনেল মেসি অথচ গাড়ি ব্যবহার করে না যেমন ব্রুনাইয়ের সুলতান তার গ্যারেজে শুধু মাত্র 500 টি rolls-royce গাড়ি রেখেছেন আর দুবাইয়ের রাজা মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুম গ্যারেজে প্রায় 1000 টি গাড়ি রয়েছে তো সেই হিসেবে মেসেজ করেছে মোটামুটি 14 টি গাড়ি রয়েছে আর লিওনেল মেসির চৌদ্দটি গাড়ির মূল্য প্রায় 260 কোটি টাকার গাড়ি গুলো হচ্ছে ফেরারি 335 আর এই গাড়িটি মেসির সব থেকে প্রিয় গাড়ি এছাড়া রয়েছে একটি মেজরিটি এন্ড ট্যুরিজম সি রয়েছে একটি মেজারিং টুলস আরে ট্রিটেদ ছাড়া রয়েছে.

দজ চার্জার srt8 একটি অডি r8 স্পাইডার একটি অডি q7 একটি ফেরারি 5430 স্পাইডার একটি লেক্সাস আরেকটি ক্যাডিল্লাক এস্ক্যালাদে 13 মিনিট অফার একটিভ 11 12 ও 13 টয়োটা প্রিয়াস এইসব গাড়ি ছাড়াও লিওনেল মেসির একটি প্রাইভেট জেট প্লেন রয়েছে যার নাম গার্লফ্রেন্ড বিহারী প্রাইভেট জেট এর মূল্য প্রায় 500 কোটি টাকা তো প্রাইভেট জেট প্লেনের মধ্যে রয়েছে একটি সুন্দর কিচেন রয়েছে দুটি সুপার বাথ্রুম এ ছাড়া রয়েছে 16 ফিট যেগুলোকে যেকোনো সময় বিছানাতে কনভার্ট করা যায় আর এই প্লেন্টি মেসি বিশেষ করে তার জন্যই ডিজাইন করেছেন আর এইযে প্লেনের পেছনের পাতাতেই মেসির নাম লেখা রয়েছে এছাড়া এই প্রাইভেট জেট প্লেনের শিলিগুড়িতে মেসির নাম তার বউয়ের নাম তার পাল তুলে নাম লেখা রয়েছে এছাড়া মেসির বাসস্থানের বিষয়ে কথা বলে তার বাড়িগুলো পৃথিবীর সবথেকে দামি বাড়ি না হলেও তার থেকে কম কিছু নয়.

আসলে মেয়েটির কাছে এত সম্পদ রয়েছে যে সে ইচ্ছা করলে পৃথিবীর সবথেকে দামি বাড়ি টাও কিনে নিতে পারে তবে সেটা যাই হোক মেসির কাছে দুইটি বাড়ি রয়েছে প্রথম বাড়িটির রয়েছে ক্যাস্তেল ডিফেন্স নামের এই জায়গাটিতে আর এই বাড়িটির দৃশ্য খুবই সুন্দর এছাড়া মেসি এই বাড়ির ভিতরে যে সুবিধা রয়েছে সেটি হচ্ছে বাড়ির ভিতরে রয়েছে একটি জিমনেশিয়াম এছাড়া রয়েছে তার বইয়ের সাজুগুজুর জন্য একটি সুপার শপ এছাড়া মিশিয়ে বাড়ির ভেতরে রয়েছে একটি ফুটবল পিচ যেখানে মেসি বেশিরভাগ সময় অনুশীলন করেন তো সুন্দর করে বাড়িটির মূল্য প্রায় 50 কোটি টাকা আর মেসির দ্বিতীয় বাড়িটি দেখতে অনেকটা অ্যাপেল কোম্পানির অফিস এর মতো মানে মেসির এ বাড়িটি একেবারে ইউনিক ভাবে তৈরি করা বার্সেলোনা শহর থেকে 30 কিলোমিটার দূরে ক্যাথলিন পাহাড়ের মধ্যে রয়েছ মিশে এই বাড়িটি এই বাড়িটি ডিজাইন দেখতে অনেকটাই একটি ফুটবল মাঠের মতো আর বর্তমানে মেসি এই বাড়িতে বসবাস করছেন তো যাই হোক এই সম্পূর্ণ বাড়িটির মূল্য প্রায় 100 কোটি টাকা আর আরেকটি বিষয় জানলে আপনি অবাক হবেন চাই.

লিওনেল মেসির একটি থিম পার্ক তৈরি করা হচ্ছে যার নাম দাম বেশি এক্সপিরিয়েন্স পার্ক পার্ক তৈরি করা হচ্ছে 42 হাজার স্কয়ার ফিট এলাকাজুড়ে আর এই পার্কটি তৈরি হয়ে যাওয়ার পর এটিই হবে পৃথিবীর সবথেকে বড় ফুটবল থিম পার্ক আর এই সম্পূর্ণ থিম পার্ক তৈরি করতে মোটামুটি 200 মিলিয়ন ইউএস ডলার বা 17 হাজার কোটি টাকা খরচ করা হয়েছে এছাড়া লিওনেল মেসি মানুষকে সাহায্য করার জন্য লিও মেসি ফাউন্ডেশন তৈরি করেছেন লিওনেল মেসির প্রতি বছর কোটি কোটি টাকা বিভিন্ন চ্যারিটিতে দান করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button