সমাধান

সুন্দর করে কথা বলার উপায়গুলো জানুন

কারো সাথে কথা বলতে কি আপনি ভয় পান? কারো সাথে কিভাবে conversation start করা যায়, তা নিয়ে কি আপনি চিন্তিত আছেন? আপনি ভাবেন যে যদি আমি তার সাথে কথা বলতে গিয়ে কোন কিছু ভুল বলে ফেলি,

Well আজকের এই পোষ্টটি নলেজের ভান্ডারে পুর্ণ রয়েছে. আজ আপনি communication skills এর এমন চারটি টেকনিকের ব্যাপারে জানতে চলেছেন. যেগুলিকে apply করে আপনি কথা বলায় একদম expert হয়ে যাবেন. আপনি easily কোন অচেনা লোকের সাথে confidently কথা বলতে পারবেন. যার সঙ্গে আপনার কথা বলতে গেলে হাঁটু কাঁপতো,

সুন্দর করে কথা বলার উপায়

আপনি তার সাথেও easily confidently কথা বলতে পারবেন. এবং তারাও আপনার কথা বলার স্টাইলে impress হয়ে যাবে.

So let’s bigging, communication skills কে improve করার number one হলো quality. শুনে হয়তো আপনি ভাবছেন যে এটা আবার কেমন technique. একটি ভালো conversation. Depend করে সেই conversation এর quality র ওপর. অর্থা আপনার কথা বলার quality কেমন?

অর্থাৎ আপনি লোকের সাথে যখন তখন আপনি কিভাবে বলেন? তো সব থেকে প্রথমে এটা চেষ্টা করুন যে যখন আপনি কোন কিছু বলবেন তখন সেই কথা বলার মধ্যে থেকে সকল unimpotent word গুলিকে বাদ দিন.

ফর এক্সাম্পল হুম হ্যাঁ ঠিক আছে you know normally এই সকল ওয়ার্ড গুলি কিন্তু আপনার conversation এর কোন value add করে না. আপনি ফালতু এই ওয়ার্ড গুলিকে ঘন ঘন ব্যবহার করেন. ফর এক্সাম্পল এই প্যারাগ্রাফটি ভালো করে শুনুন. রবিবার আপনি কি করেন?

প্রতি রবিবার আমি ক্রিকেট খেলতে যাই, দু ঘণ্টা প্রায় ক্রিকেট খেলি, উম্, তারপর সন্ধ্যেবেলায় ফ্যামিলির সাথে বসে গল্প করি, you know রবিবার তো তেমন কোনো কাজ থাকে না, হুম, তার জন্য সেই দিনটি পড়াতে দিইনা.

এবার এই কনভার্সেশনটিকে আপনি এইভাবে শুনুন. রবিবার আপনি কি করেন? আমি প্রতি রবিবার ক্রিকেট খেলতে যাই. দু ঘণ্টা ক্রিকেট খেলি. Then সন্ধেবেলা ফ্যামিলির সাথে বসে গল্প করি. রবিবার দিনটি ছুটির দিন তো? তাই সেই দিনটিতে পড়াশোনা খুব একটা করি না তো দেখুন second version টি ছোট।

কিন্তু এটা first version এর থেকে বেশি confident এবং sincere মনে হচ্ছে. তাই না? তবে এটা better confident এবং sincere মনে হলেও, এই conversion নের মধ্যে একটি জিনিস missing রয়েছে. তো চলুন সেই missing জিনিসটি কি তা জেনে নি technique number two তে.

যা হলো poss. কোন কথাকে অনড় ভাবে মুখস্থের মত না বলে, বরং একটু থেমে থেমে বলুন. যখন আপনি একটু থেমে থেমে বলেন তখন এটা আপনার কথার মধ্যে এক প্রকার পাওয়ার কে add করে দেয় এবং আপনার কথা বলার স্টাইল কে improve করে দেয় ফর এক্সাম্পল আমি প্রতি রবিবার ক্রিকেট খেলতে যাই দু ঘণ্টা ক্রিকেট খেলি then সন্ধে বেলা সঙ্গে বসে গল্প করি,

রবিবার দিনটি ছুটির তো, তাই সেই দিনটিতে পড়াশোনা খুব একটা করি না. নিজের কথা বলার স্টাইল এ এক প্রকার power কে add করার জন্যে একটু থেমে বলুন. Third technic হল statements. একটি common লোকেরা করে যা হলো conversation কালীন সামনের ব্যক্তিকে question এর ওপর question ফায়ার করতে থাকে. মনে হয় যেন ইন্টারভিউ নিচ্ছে. Conversation কালীন. আপনি এটা কোনদিনই করবেন না.

কারণ যদি আপনি তাকে শুধু প্রশ্ন করতেই থাকে এবং নিজের ব্যাপারে যদি তাকে কিছুই না বলেন, তাহলে তো এটা one sided conversation হয়ে গেল. তাই না? এতে সামনের সেই ব্যক্তি যতটা সম্ভব আপনার কাছ থেকে তাড়াতাড়ি সরে যাওয়ার চেষ্টা করবে. তাই question করার পরিবর্তে,

স্টেটমেন্টস এর ব্যবহার করুন. একটু মনোযোগ দিয়ে শুনুন. একটি হলো কোল রেডিং স্টেটমেন্টস. কোল রিড স্টেটসমেন্টস এ আপনি কনভার্সেশনের আগে সামনের ব্যক্তিটিকে একটু observe করুন. আপনি ব্যক্তি র ব্যাপারে কয়েকটি জিনিস কেস করে নিন.

মনে করুন যে আপনি কারো কাছ থেকে জানতে চান যে তার হবিস কি? তো এক্ষেত্রে এক, আপনি তাকে simply জিজ্ঞেস করতে পারেন যে আপনার হবে কি?

দেখছেন সুন্দর করে কথা বলার উপায়

অথবা cold reading statements এর হিসেবে আপনি তাকে পারেন যে আপনাকে দেখে বেশ ইন্টারেস্টিং মনে হচ্ছে. আমি হান্ড্রেড পার্সেন্ট গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি যে আপনার হবি ও আপনার মতই বেশ ইন্টারেস্টিং হবে. তো এক্ষেত্রে যদি আপনার গেস্ট ভুল হয় তো সেই ব্যক্তি আপনাকে আপনার ভুলটি ধরিয়ে দেবে.

না না আমি আবার অত কথায় interesting. সারাদিন তো ঘুরে বেড়াই. কিন্তু যদি আপনি ঠিক হন তাহলে আপনার এবং তার মধ্যে একটি strong bonding তৈরি হয়ে যাবে. এবং সেই ব্যক্তিও আপনার সাথে নিজে থেকেই কথা বলতে চাইবে. আপনি ভেবে জানলেন যে আমার হবে ইন্টারেস্টিং?

আর আপনি জেনে অবাক হবেন যে কোল রিডিং টেকনিককে জ্যোতিষী psychiatrist, mentalist, election রা use করে থাকে. সামনের ব্যক্তির ব্যাপারে guess করুন. যদি আপনার ভুল হয় তাহলে তারা আপনাকে সঠিক বলে দেবে আর যদি আপনি ঠিক হন।

তাহলে সামনের ব্যক্তির সাথে আপনার একটি ভালো connection build হয়ে যাবে second statement হলো story statement যদি আপনি কারো কাছ থেকে জানতে চান যে সে কোন জিনিসকে দেখে ভয় পায়. তো এক্ষেত্রে এই প্রশ্নটি একটি সিম্পল কোশ্চেন হয়ে যায়. কারণ এই প্রশ্নটিতে আপনি কোন ইনফরমেশন, বা স্টোরিকে শেয়ার করলেন না.

সুন্দর করে কথা বলার নিয়ম

তো আপনি এই প্রশ্নটিকে একটি স্টোরি আকারে তৈরি করতে পারেন. আপনি বলতে যে ছোটবেলায় আমি অন্ধকারকে দেখে খুবই ভয় পেতাম. ঘুমানোর সময় তো আমি নিজেকে blanket এ মুড়িয়ে নিতাম. যাতে কোনো ভূত আমাকে ধরতে না পারে. তো এই সিচুয়েশনে, আপনি সামনের ব্যক্তিকে, একটি story শোনালেন. যেখান থেকে সামনের সেই ব্যক্তি বেশ কয়েকটি টপিকে এক্সট্রাক্ট করতে পারবেন.

লাইক অন্ধকার ছোটবেলা ভূত অ্যাটসেটরা. এবং এই ইনফরমেশন গুলিকে গেদার করে সামনের সেই ব্যক্তিও আপনার সঙ্গে তার ভয়ের ছোটবেলার বা ভুতের experience কে শেয়ার করা শুরু করবে.

তাই সিম্পল কোশ্চেন করার পরিবর্তে, স্টেটমেন্টসের ইউজ করুন. এতে যার সাথে আপনি কথা বলছেন, তার সাথে আপনার একটি স্ট্রং কানেকশন তৈরি হয়. এবার চলে আসি কমিউনিকেশন স্কিনস এর টেকনিক।

এই টেকনিকটি এতটাই স্ট্রং যে যদি আপনি এটিকে ব্যবহার করা শিখে যান তাহলে আপনার কথায় সকলে impress হয়ে যাবে আপনার কথা বলার ধরণই change হয়ে যাবে এবং আপনার শব্দের মধ্যে এক প্রকার confidence এবং Trust তৈরী হয়ে যাবে আর এই টেকনিকটি হলো conversational thready.

একটি normal conversation কতটা funny হয় শুনুন. আপনার বাড়ি কোথায়? আমার বাড়ি ওয়েস্ট বেঙ্গলে. ও that’s স্কুল, আপনার বাড়ি কোথায়? আমার বাড়ি Bangladesh এ. ও আচ্ছা, তারপর বলুন কেমন আছেন? এইতো ভালো আছি. আপনি কেমন আছেন? আমিও ভালো আছি. তারপর বলুন. এই তো. ব্যস এতটুকুই. আর এখানেই আপনার conversation death হয়ে যায়.

আরও পড়ুনঃ অরিজিনাল ভিটমেট ডাউনলোড

আসলে conversation thready দুই ভাবে কাজ করে. First, যখন আপনি কিছু বলবেন তখন এতটা ইনফরমেশন দিন, যে যেন সামনের ব্যক্তি সেই ইনফরমেশন থেকে topic choose করে, conversation কে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে. মানে আপনার স্টেটমেন্টসের মধ্যে একটি স্টোরি থাকতে হবে,

যেভাবে তিন নম্বর পয়েন্টে আমি আপনাকে বললাম, এবং সেকেন্ড হলো সামনের ব্যক্তি যেভাবে আপনার কথার মধ্যে টপিককে খুঁজ ঠিক একই রকম ভাবে আপনিও তার কথার মধ্যে থেকে টপিক কে খুঁজে বের করুন যাতে আপনিও conversation কে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন. যখন আমরা কিছু বলি তখন আমাদের প্রতিটি sentence এই বহু tropic থাকে. যেগুলিকে হয়ত আমরা ধ্যানি দিই না.

তো এই কনভারসেশনটিতে আমি ওয়েস্ট বেঙ্গলে থাকি না বলে যদি আপনি বলেন যে যদিও আমি ওয়েস্ট বেঙ্গলে থাকি কিন্তু কোলকাতার মতো কোনো শহরে আমার বাড়ি নয়. বরং আমি গ্রামে বাস করি. আর সত্যি বলতে কি আমাকে বেশ ভিড়ে লাগা পছন্দ লাগে না.

আর এই sentence টি থেকে বহু tropic বের করা যেতে পারে. যেমন ওয়েস্টবেঙ্গল, কলকাতা, ভিড়, গ্রাম, historical place, শহরের experience, গ্রামের experience, আপনি বহু topic কে বের করতে পারবেন এবার মনে করুন যে সামনের ব্যক্তি শুধু এটাই বললো যে আমার বাড়ি ওয়েস্ট বেঙ্গলে তো এক্ষেত্রে আপনি তার সাথে ভালোভাবে কথা বলুন।

ভালো করে কথা বলার উপায়

আপনি তাকে বাংলাদেশের কোথায় থাকেন তা বলতে পারেন আপনি তাকে আপনার শহর বা গ্রামের ব্যাপারে দিন আপনাকে কি ভালো লাগে গ্রাম নাকি শহর তার ব্যাপারে ইনফরমেশন শেয়ার করুন এতে সামনের ব্যক্তি conversation কে continue রাখার জন্যে আপনার কাছ থেকে বেশ কয়েকটি tropic কে পেয়ে যাবে.

বেশিরভাগ conversation খুব শি এই কারণেই শেষ হয়ে যায় কারণ দুইজন ব্যাক্তি বা ব্যাক্তিরা একে অপরকে conversation কে continue রাখার জন্যে যথেষ্ট ইনফরমেশন ই শেয়ার করে না. যথেষ্ট পরিমাণ ইনফরমেশন এর অভাবে conversation শুরু হতে হতে হয়ে যায়.

তো যদি আপনাকে কেউ কোনো tropic দিয়ে দেয় তো আপনি তার মধ্যে থেকে choose করতে পারেন. যেটাতে আপনার interest রয়েছে. এবং তার ওপর কথা বলতে পারেন. আর যদি সে আপনাকে topic না দেয় তো আপনি তাকে topic দিন stor Statements এর মাধ্যমে যাতে সে আরও কথা বলতে পারে.

তো পোষ্টটি সামারি হল এই যে নম্বর ওয়ান কোয়ালিটি. অর্থাৎ নিজের কথা বলার মধ্যে কোয়ালিটি আনুন.

এবং সকলে unimportant ওয়ার্ড গুলিকে বাদ দিয়ে দিন. সেকেন্ড হলো প অর্থাৎ অনরগোল ভাবে মুখস্থ বিদ্যার মতো না বলে, বরং একটু থেমে বলুন, যাতে আপনার কথার মধ্যে এক প্রকার confidence তৈরি হয়.

Third হল story statements. অর্থাৎ কথা বলাকালীন প্রশ্নের উপর প্রশ্ন করার পরিবর্তে statement কথা বলুন যাতে সামনের ব্যক্তি আপনার সাথে মন খুলে কথা বলতে পারে এবং নিজের ব্যাপারে আপনাকে কিছু বলতে পারে.

এবং ফোর্স হলো conversational thready. অর্থাৎ সামনের ব্যক্তির কথাগুলিকে মনোযোগের সাথে শুনুন এবং তার মধ্যে থেকে top কে বেছে নিয়ে conversation কে continue রাখুন. আপনাদের সাথে আবার কথা হবে পরবর্তী পোষ্টে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button